Huntress

gypsy_huntress01

ব্যাধিনী ©

মানসী তুমি আর মনে মনে মোহনবাঁশি বাজিওনা,
ধন্যামগ্ন হলে মনশ্চক্ষুতে তোমার মনোহর রূপ দেখি,
রাত নিশি হলে নিধুবনে আসিও মানভঞ্জন করব,
আমার মন-স্তাপ দূর হবে, মনে অনুতাপ না থাকবে।
মতান্তর থেকে মনান্তর হয়েছে জানি মনোমালিন্যে মন মলিন,
তোমার মনে ব্যাধি, ব্যাধিনী তুমি আমার মনকে খুন করেছ,
খুনির মনে নয় ছয, না জানি কখন হাতেনাতে ধরা খাবে,
মান ভুলে ছায়াবিতানে আস মনস্কামনা পুরন কর, মনস্তুষ্টি পাবে।

One of my first poems

~ আমার বিরহ লহরী ~
১৯৮৯ সালে লেখা।

 

কত সৌন্দর্য লুকিয়ে আছে নিসর্গ মাঝে,
কত উদাস লাগে মানুষকে কালোর মাঝে ডুবে গেলে,
নৈসর্গিক সৌন্দর্যতা শুধু দেখা যায় তাকালে অন্তর দৃষ্টি মেলে।
তেমন করে মোর দিব্ব নয়নে হেরেছিলাম
কামাক্ষী তব মনোহর রূপ উঠিত কালে
প্রেমে মজে জীবন কাননের একক কলি তব হাতে
ডারিতে দিয়েছিলাম স্বপ্ন শত আশায় মিলনের ছলে।বিধেয়, রিক্ত আমি উদাস মনের অধিকারি,
গন্তব্যের ঠিকানা জানা নেই পথের দিশা কান্ত আমি দিনান্তে।
অচেনা অজানা দূর বিরহী অভিসারী চিরচেনা পথে,
সুখের বেলাবসান দুঃখের হাতছানি পেয়ে পথহারা এখন মম,
সূর্য ডুবিলে রজনিতে কোথায় যাব কা দোয়ারান্তে?
আপনার করিতে মোরে চাহেনা কেউ উদাস মনের সাথী হইতে।
স্বজন ডেকে বাহু বাঁধনে জড়াতে আসেনা কেউ সাথী হয়ে
আলয় সাজতে নৈরাশ স্বপ্নহীন বিরান প্রেমের তেপান্তে।

 

 

প্রেম উদাসী বানিয়েছে আমায় কবি।