“বিবাগী”

মনে আনচান আমার চোখে লেগছে রূপের নেশা,
মাতাল হয়েছিলাম আমি অধরমধু পান করে,
বধু তুই কইলো মধুবনে আয় মনের কথা বলব কানে কানে।

তোর হাসির ছন্দ তানে, বাতাস হবে বিবাগী,
তোর রূপের ঝলকে সূর্য লোকাবে লাজে,
তোর অঙ্গ সুবাসে ফুল ফুটবে বিজন কাননে।
বধু তুই কইলো মধুবনে আয় মনের কথা বলব কানে কানে।

পূবালী বাতাসে শিমুলের তুলা ভেসে পশ্চিমে যায়,
আমার চটফটানি দেখে চাঁদ হাসে আকাশে,
তোর মনের খবর শুনার জন‍্য উচাটন আমার মনে।
বধু তুই কইলো মধুবনে আয় মনের কথা বলব কানে কানে।

“Coppersmith Barbet”

“বসন্ত বাউরি”

সুখ বসন্ত সুখবাসরে মনানন্দে গান গায় বসন্ত বাউরি,
পুরুষ ফুলের বুকে বসে মুধু খায় ভ্রমরী, একটা ভ্রমরী।
কোকিলার কুহু তানে বিমনা মন করে উড়াউড়ি,
বুকের ভিতর বিরহী চিঁড়া কুট্টে মুচকি হাসে কিশোরী।
গহিন বনে কেকা ডাকে পেখম মেলে নাচে ময়ূরী,
বিরহী প্রেমিকের দুঃখ ক্লেশ দূর হয় আসে যবে প্রিয়ারি।
কাব্যকাননে বসে কবিতা লেখি আমি মিশিয়ে মনের মাধুরী,
লীলাচঞ্চলে বাঁশির সুর ভেসে আসলে সুর মিলায় মন মায়ূরী।

মাতোয়ালা ©

কবিতার ভিড়ে কবিতা হারাল কবির ভিড়ে কবি,
কাগজের দিস্তায় কাগজ হারাল,
নষ্ট কলমের মাঝে আমার প্রিয় কলম লুকাল,
অপারগ হয়ে নয়ন জলে কালি বানিয়েছিলাম,
বিমনা হয়ে মনের কথা লেখেছিলাম সাদা কাগজে,
পানিতে রং মিশিয়ে নয়ন জলে এঁকেছিলাম ছবি।
যৌবনোদয়ে প্রিয়তমা ছিল তিলোত্তমা,
রূপে চটক রূপবতীর হাসিতে ছিল জেল্লা,
বিতুনর অঙ্গ সুবাসে মন হত মাতোয়ালা,
মদিরাক্ষীর বাঁকা চাহনিতে চরম নেশা ছিল,
কন্ঠলগ্নে অদর মুধ পান করে খোঁয়াড়ি হয়েছিলাম,
কাব্যকাননে প্রবেশ করে আমি খুলে দিলাম সবি।

Mantrap

Broken_Loner

চিকনবরনী ©

চিকনবরনী ও সুন্দরী তোমার দাদী কি বলেলনি তোমায়
যৌবনোদয়ে এমন করে হাটতে নেই নির্জন পথে একেলা।
ঘরে যাইয়া দেখিও আয়নাতে চাইয়া জগৎ সুন্দরী তুমি এক অবলা।
জ্বিন ভূত পাগল হয় মদালসা রূপ হেরিয়া
জোয়ান মস্তান জঞ্জাল ঘটায় পথে ঘাঁটে কামাক্ষীদের বাহার,
বিনোদন চায়, পঞ্চশরে সবাই মনভুলা।
জগতের হাঠে রূপের বেচাকেনা হয়,
মনের মূলে প্রেমের ছলে মিলে জ্বালা।
কামিনী, কামিনী, কামিনী, উদাসী আমি তুমি রূপে উজালা।

Loverman

Baul

 

সন্ধ্যা সাঁজে হৃদয় মাঝে ব্যথার ক্রন্দন সুর বাজে,

এজহার সুর শুনে মন বিমনা হতে চেয়েছিল,

কিন্তু হায় বধূয়ার অঙ্গভঙ্গি হেরে প্রেমে মজেছে সন্ধ্যা সাজে।

কুটমিতার জন্য বধু যায় বাপেরবাড়ি আমি হই বিরহী,

তারে দেখার জন্য রওনা হই,

গলায় ফকিরামালা হাতে দুতারা, সূর্য ডুবে রাত হয় হয়,

কম্বলসম্বল আমার কাঁধে ঝুলি,

আড়ালে দাঁড়িয়ে আমাকে দেখে আপন মনে ভাবে বধূ,

মন্দ লোক হয়তো প্রতারক।

অবাক আমার চাহনি দেখে,

পল্লি গায়েরে অবলা বধূ মরমে মরে লাজে।

চাতকি ওর চাহনি, হাতের কাকন ঝঙ্কে মন বসেনা কাজে,

চঞ্চল চলার ভঙ্গি দেখে পুলক জাগে আমার বুকের মাঝে,

সন্ধ্যা সাঁজে।