সত্য ধার্মিক

আজ একটা গল্প লিখতে মন চাইছে, গল্পটা হল এক বোকাকে নিয়ে। তো বোকাটায় কি করেছিল? জোয়ান কালে তিড়িংবিড়িং করে অনেক কিছু করেছিল। ভালো রুজি করেছে, প্রেম করেছে একাধিকবার। ভালো গাড়ি ভালো কাপড় ব্যবহার করত। কিন্তু কখনো বুদ্ধি ব্যবহার করেনি। ভেবেছিল জীবনটা তিড়িংবিড়িং করেই কেটে যাবে। বিয়ে সংসার হওয়ার পরও তার তিড়িংবিড়িং থামেনি। সে তার আগের মতই তিড়িংবিড়িং করতে থাকে। সংসারে সমস্যা শুরু হয়। সুখেবাসরে আগুন লেগে সব কিছু পোড়ে ছারখার হয়ে যায়। লোকজন তাকে উপদেশ দিতে শুরু করে। কেউ ধমকিয়ে বলে, জীবন ছিনিমিনি খেলা নয়। কেউ বলে, তোকে জানে মেরে ফেলবো। কেউ তাকে সান্ত্বনা দেয়। একটা কথা মনে রাখতে হবে, কিছু ভাংলে তা আর জোড়া লাগে না। জারি-জুরি করলে সমস্যা মহাসমস্যা হয় এবং জোরাজুরি করলে হাত পা কাটে। তাহলে সমাধান কি? আমরা মানুষ। মনে প্রেম এবং ঘৃণা থাকে। আমরা তাকেই ঘৃণা করতে পারি যাকে ভালোবাসি। অপরিচত একজনকে ঘৃণা করা যায় না। ক্ষমা পরম ধর্ম এবং মহৎ গুণ। কিন্তু সব সময় এবং সবাইকে ক্ষমা করা যায় না। বোকার জন্য একমাত্র সামাধান হল, তাকে ধার্মিক হতে হবে। ধার্মিকরা আল্লাহর খুশির জন্য ত্যাগ সাধনা করে। সবকথার শেষ কথা, সুখি হতে হলে সত্য ধার্মিক হতে হয়।